Life Processes (জীবন প্রক্রিয়াসমূহ)

More options for you.


General KnowledgeEnglish GrammarMathIQ-TestQuiz-Test

"The human heart is a strange vessel. Love and hatred can exist side by side."

― Scott Westerfeld

Life processes are the chain of action that are absolutely necessary to identify if an animal or a plant is alive.
All the plants and animals are alive or living things have seven essential processes in common.
Those are as follows:
জীবন প্রক্রিয়াসমূহ হচ্ছে জীবদেহের নানাপ্রকার জৈবনিক ক্রিয়া, যা জীবদেহের প্রানের অস্তিত্ব প্রমান করতে অত্যাবশ্যক।
সকল জীবিত প্রাণী বা উদ্ভিদ-এর জীবন ধারায় সাধারনভাবে সাতটি প্রক্রিয়া বা পদ্ধতি অপরিহার্য।
এগুলো নিম্নরূপ :

i) Movement (চলন)
ii) Growth (বৃদ্ধি)
iii) Respiration (শ্বসন)
iv) Nutrition (পুষ্টি)
v) Excretion (রেচন)
vi) Sensitivity (সংবেধনশীলতা) and
vii) Reprodcution (প্রজনন)



Movement বা চলনঃ চলন বা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে গমনের সামর্থ্য, এই প্রক্রিয়াটি সকল জীবন্ত প্রাণী ও উদ্ভিদ-এর মাঝে লক্ষ করা যায়, এবং এই প্রক্রিয়াটি-ই সবচেয়ে বড় পার্থক্য গড়ে তুলে জীব এবং জড় বস্তুর মাঝে। তবে প্রানী; মানুষ, কুকুর, গরু, বাঘ, পাখি, মাছেরা যেভাবে পুরু দেহ বা শরীর নিয়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে গমন করতে পারে, উদ্ভিদ; আমগাছ, পেয়ারাগাছ, বটগাছেরা পুরু দেহ বা শরীর নিয়ে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে যেতে পারে না ( ব্যাতিক্রমঃ ভলভস্ক, ক্লামাইডোমোনাস )। উদ্ভিদ-এর বিভিন্ন অঙ্গ-প্রতঙ্গ এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সঞ্চালন করতে পারে, যেমনঃ গাছের শিকড়, কিন্তু প্রক্রিয়াটি এতই ধীর গতিতে সম্পন্ন হয় যে, তা আমরা স্বভাবিক ভাবে দেখি না, তবে সময়ের ব্যাবধানে তা বুঝা যায়। আর প্রাণীর ক্ষেত্রে গমন প্রক্রিয়াটি খুব সহজেই চোখে পড়ে, যেমনঃ বাঘ যে প্রক্রিয়ায় হরিণ শিকার করে। প্রাণীরা খাদ্য সংগ্রহের জন্য এক স্থান থেকে অন্য স্থানে গমন করে, আর উদ্ভিদ সালোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় খাদ্য তৈরি করার জন্য পর্যাপ্ত আলো পাওয়ার লক্ষে উদ্ভিদের কাণ্ড আলোর দিকে এবং পানি সংগ্রহের জন্য উদ্ভিদের মূল বা শিকড় মাটির গভীরে যায়।

চলনের সংজ্ঞা ( Definition of Movement) জীব যে প্রক্রিয়ায় বাহ্যিক উদ্দীপকের উপস্থিতিতে বা অনুপুস্থিতিতে জৈবিক প্রয়োজনের তাগিদে কোনও নির্দিষ্ট জায়গায় স্থির থেকে এর বিভিন্ন অঙ্গ-প্রতঙ্গ এক স্থান থেকে অন্য স্থানে সঞ্চালন করে তাকে চলন বলে।

গমনের সংজ্ঞা ( Definition of Locomotion) জীব যে প্রক্রিয়ায় বাহ্যিক উদ্দীপকের উপস্থিতিতে বা অনুপস্থিতিতে জৈবিক প্রয়োজনের তাগিদে এর বিভিন্ন অঙ্গ-প্রতঙ্গ সঞ্চালনের মাধ্যমে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে (পরিমাপ যোগ্য দুরত্ব) যায় তাকে গমন বলে।

Growth বৃদ্ধিঃ বৃদ্ধি বা দৈহিক বৃদ্ধি সকল জীবন্ত প্রাণী ও উদ্ভিদ-এর মধ্যে বিদ্যমান, জন্ম নেওয়ার পর থেকে প্রাপ্ত বয়স পর্যন্ত সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে প্রতিটি প্রাণী ও উদ্ভিদ-এর মধ্যে দৈহিক বৃদ্ধি ঘটে থাকে।

Respiration (শ্বসন) জীবদেহে, জৈবিক প্রয়োজনে প্রতিনিয়ত নানাপ্রকার জৈবনিক ক্রিয়া সংঘটিত হচ্ছে, এবং এসব যাবতিয় ক্রিয়া-কলাপ নিয়ন্ত্রণের জন্য শক্তির প্রয়োজন হয়। জীবদেহের প্রয়োজনিয় এই শক্তির উৎস হল খাদ্য। আর খাদ্যে বিদ্যমান এই শক্তি সালোকসংশ্লেষণ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে (উদ্ভিদ তৈরী করে) সৌরশক্তি হতে উৎপন্ন হয়। খাদ্যে বিদ্যমান এই স্থিতিশক্তি, যে জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাপশক্তি বা গতিশক্তিতে রূপান্তরিত হয় তাকেই শ্বসন প্রক্রিয়া বলে।
শ্বসন একটি বিপাকিয় প্রক্রিয়া যা সাধারণত সকল জীবের জীবন ধারনের জন্য অপরিহার্য। আমরা শ্বাস নেওয়ার সময় প্রতিবারই অক্সিজেন গ্রহণ করি, আর নিঃশ্বাস ছাড়ার সময় কার্বন ডাই-অক্সাইড এবং জলীয় বাষ্প (পানি ও শক্তি) ত্যাগ করি। এককোষী প্রাণী এমিবা থেকে শুরু করে নীল তিমি পর্যন্ত, সকল জীবদেহে প্রতিনিয়ত শ্বসন নামক এই জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়টি সংঘটিত হচ্ছে।

শ্বসনের সংজ্ঞা (Definition of Respiration): যে জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়ায় জীবকোষের খাদ্যবস্তু (C6H12O6) মুক্ত অক্সিজেনের উপস্থিতিতে অথবা অনুপস্থিতিতে উৎসেচকের (Enzyme) মাধ্যমে জারিত হয়ে কার্বন ডাই-অক্সাইড (CO2), পানি (H2O) কখনো ইথাইল অ্যালকোহল (C2H6O) বা ল্যাক্টিক এসিড (C3H6O3) উৎপন্ন করে এবং খাদ্যে আবদ্ধ স্থিতিশক্তি মুক্ত তাপশক্তি বা গতিশক্তিতে রূপান্তরিত হয় তাকে শ্বসন (Respiration) বলে।

Cell Respiration Formula:
C6H12O6 (Glucose) ➕ 6O2 (Oxygen) 6CO2 (Carbon dioxide) ➕ 6H2O (Water) ➕ ATP (Energy)

সকল সজিব কোষে শ্বসন প্রক্রিয়াটি দিনরাত ২৪ ঘণ্টা ঘটে থাকে, আমরা ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায়ও এই প্রক্রিয়া চলতে থেকে। বায়ুজীবি প্রানীর মধ্যে সবাত শ্বসন আর অবায়ুজীবি প্রানীর মধ্যে অবাত শ্বসন ঘটে থাকে।

সবাত শ্বসন বা Aerobic Respiration: যে শ্বসন প্রক্রিয়ায় বায়ূজীবি জীবকোষের খাদ্যবস্তু (C6H12O6) মুক্ত অক্সিজেনের উপস্থিতিতে উৎসেচকের (Enzyme) মাধ্যমে সমপুর্ন জারিত হয়ে কার্বন ডাই-অক্সাইড (CO2), পানি (H2O) উৎপন্ন করে এবং খাদ্যে আবদ্ধ স্থিতিশক্তি সমপুর্ন ভাবে মুক্ত হয় তাকে সবাত শ্বসন বা Aerobic Respiration বলে।
Note: যে সকল জীব বায়ুমণ্ডলের মুক্ত অক্সিজেন গ্রহণ করে শ্বসন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে তাদের বায়ূজীবি বলে যেমনঃ মানুষ, ক্কুর, বিড়াল, বাঘ, সিংহ প্রভৃতি।

Aerobic Respiration Formula:
C6H12O6 (Glucose) ➕ 6O2 (Oxygen) 6CO2 (Carbon dioxide) ➕ 6H2O (Water) ➕ 686 K.Cal energy

অবাত শ্বসন বা Anaerobic Respiration: যে শ্বসন প্রক্রিয়ায় অবায়ূজীবি জীবকোষের খাদ্যবস্তু (C6H12O6) মুক্ত অক্সিজেনের অনুপস্থিতিতে কিন্তু অক্সিজেনযুক্ত যৌগের সাহায্যে আংশিক জারিত হয়ে কার্বন ডাই-অক্সাইড (CO2), এবং অন্যান্য যৌগ উৎপন্ন করে এবং খাদ্যে আবদ্ধ স্থিতিশক্তি আংশিক ভাবে মুক্ত হয় তাকে অবাত শ্বসন বা Anaerobic Respiration বলে।
Note: যে সকল জীব বায়ুমণ্ডলের মুক্ত অক্সিজেন ছাড়াই শ্বসন ক্রিয়া চালাতে পারে তাদের অবায়ুজীবী বলে।

Anaerobic Respiration Formula:
C6H12O6 (Glucose) ➕ 12NO3 (Nitrate) 6CO2 (Carbon dioxide) ➕ 6H2O (Water) ➕ 12NO2 (Nitrogen) ➕ 50 K.Cal energy

আমরা অপর পৃষ্টায় Nutrition বা পুষ্টি সম্মন্ধে আলোচনা করব।




More options for you.


General KnowledgeEnglish Grammar, ,  MathIQ-TestQuiz-Test